যন্ত্রযুগ যন্ত্রণার দহনে দগ্ধ তিক্ত, বিবর্ণ বিষন্ন। উ‍ৎকন্ঠিত দাহে শুষ্ক, লাবণ্যহীন, পেলব সুকুমার মনোবৃত্তিগুলো অন্তর্দাহে ক্ষোভ, হতাশা হতশ্রী নিরস তাইতো দেখি এখনকার তরুণদের চোখে-মুখে এক ব্যঙ্গ বিদ্রপ-বিরুক্তির ছায়া। এই তরুণ মনের শিল্প সাধনায়ও তীব্র বিদ্রুপ জ্বালাময়।

এমনি এক পরিবেশে তরুণ লেখক অয়ন আহমেদ রচনা করেছে তার প্রথম লেখা ‘বন্ধু মানে বোধহয়’। আজকালকার তরুণদের চোখে স্বপ্ন নেই, তারা দেখে না শ্যামল তরুলতা, আকাশের নীল, বারিধির, ঊর্মিছন্দ-তারা দেখে নিজের হিংসা দ্বেষ, স্বার্থান্ধ মানবমনের প্রকাশ। তাই তারা হারিয়ে ফেলে মনের সুকুমার প্রবৃত্তি। তারা লেখে বর্তমান পরিবেশের বিদগ্ধ চিত্র। কৈশোর উত্তীর্ন না হতেই তরুণ মন বিষণ্ন বিষাদে বিস্বাদ হয়ে ওঠে – সেই তীব্রতায় সোচ্চার হয়ে ওঠে। তাদের রচনা অতি আধুনিক নয়, কিন্তুু বিক্ষুব্ধ মনের উগার প্রকাশ পেয়েছে কবি অয়ন আহমেদের রচনায় । লেখা তার নিজস্ব আবেগে অতি পরিণতরূপে প্রকাশ করেছে তার উপলব্ধিকে।

স্বাগত জানাই এই তরুণ কবিকে, সার্থক হোক তার সাহিত্যসাধনা। একদিন সে খুঁজে পাবে সুন্দরকে-প্রশান্তি, শান্তির প্রসন্নতা অব্যাহত থাকুক তার লেখনীতে। অয়ন আহমেদের ‘বন্ধু মানে বোধহয়’ তার রূপ রস মধুগন্ধ পরিবেশনে সার্থকতা লাভ করুক – এই দোয়া করি।

সুফিয়া কামাল

৮-২-১৯৯৯
৬৫৮-এ ধানমন্ডি
সড়ক ৩২, ঢাকা

Comments are closed.