31 উলঙ্গ ছায়াতরু ও আমি

একটা ছায়াতরুর আঁচলে মৃদু মৃদু উদাসী হাওয়া বয়ে যায়,
অস্পষ্ট দেখতে পাই একটি সোনালি স্বপ্ন-
‘নীল শাড়ি পরিহিতা নীলার একটি স্পর্শ আমার হাতে ।’
এ স্বপ্নকে বাস্তব করতে সামনে শুধু একটু পা বাড়ানো,
ব্যস ওমনি হোঁচট খেয়ে ধুলোয় গড়াগড়ি ।
সেই চমৎকার স্বপ্ন দুঃস্বপ্ন হয়ে প্রতি রাতে
আমার দুর্বলতাকে ভীতসন্ত্রস্ত করে তোলে অনায়াসে ।
মনে পড়ে সেদিন এই ছায়াতরুর আঁচলের মাঝে
তোমাকে চিরদিনের জন্যে আমার করে নিতে চেয়েছিলাম;
অথচ এতো সহজে মাথা নাড়িয়ে ফিরিয়ে দিয়েছিলে-‘কিন্তু কেন?’
এ প্রশ্ন করার মনমানসিকতা আমার ছিল না আজও নেই ।
অভিমানে রবির ভালোবাসায় ছেদ পড়ে
যখন এক বিষণ্ন শীতে সে কৃপণ হয়ে যায় ।
না পাওয়ার যন্ত্রণায় চঞ্চল তরুন পাতা মরে নষ্ট হয়ে যায়,
যেমনি সেদিনের পর মরে গিয়েছিল আমার সমস্ত সুখ ।
পায়ের কাছে পিষ্ট আমার আকাঙ্খা,স্বপ্ন আর কিছু মৃত পাতা ।
সীমাহীন কষ্ট নিয়ে অযথা বেঁচে থাকে সেই উলঙ্গ তরু
সেই সাথে বেঁচে থাকি আমিও ।
দীর্ঘশ্বাসে বিড়বিড় করি,“যা চাই ভুল করে চাই ।”
ব্যথার সরোবরে পদার্পণে আমার অতৃপ্ত আত্মা
এমনকি এক নিরব সাক্ষী উলঙ্গ এক ছায়াতরু ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *